Today — I am married to her tear drops

Today —
I am married to her tear drops
Twinkling crimson rays of twilight
Crawling down her soft cheeks.
I make love to them at
The end of day —
When the mighty sun dies
And the moon high above the sky,
When the music is drunk
And each note dances upon the air.
I shake the fading stars
Bang the night
Frenzied my heart in amaze
Listening to the echoing sea shell
And I make love to her
I make love to her tear drops
Cascading in a whirling wind
Of words and phrases.

KaziMustakim_All Rights Reserved © 2017

Advertisements

আমাদের গল্প

মার্চ মাসের ১৮ তারিখ। সকালটা সেদিন শুরু হয়েছিল একটা অদ্ভুত অনুভূতি নিয়ে। কি যেন একটা চাপা আনন্দ কাজ করছিল। নিজের অজান্তেই অনেকবার মুখে হাসি আসছিল সেদিন। কেন? যদি বলি যে সেদিন প্রথম দেখা হল আমাদের। আমি ঢাকাতে থাকি আর তার এলাকা মিরপুরে, তার বাসার কাছেই থাকি শোনার পরে ওর যে সে কি আনন্দ। ভাবছিলাম কেন? আজ জানি আমি কেন।

পরিচয়টা কিভাবে?

ফেসবুকে পরিচয় আমাদের।

দেখা করব যেদিন ভেবেছিলাম আর দেখা করে বলব আমার অনুভূতিগুলো, সেদিন থেকেই কোন এক অজানা কারণে তাকে চলে যেতে হয়েছিল। ভাবিনি ফিরে আসবে সে।

একটা বছর পেরিয়ে গেল। মাঝে একবার কি দুবার কথা হয়েছিল ওর সাথে আমার। সেটা অনেক ফরমাল কথাবার্তা। সেখানে কোন অনুভূতির ছোঁয়া ছিল না। আমিও আর চাইনি বলতে। বলতে পারিনি একটা বছর আগে যে আমি ভালোবাসি তোমাকে।

অফিস থেকে বের হলাম। ভেতরের চাপা আনন্দটা ধরে রাখার বৃথা চেষ্টা করে যাচ্ছি।

নামলাম বাস থেকে মিরপুর ১০। ফোন দিলাম কোথায়। প্রথম কণ্ঠ শুনলাম তার। বলল আমি বইয়ের দোকানগুলোর কাছে। কিভাবে যেন অনেকের মাঝে থেকে পেছন থেকে বুঝলাম ওটাই ও ছিল।

গিয়ে বোকার মত বললাম – “কি অবস্থা”?

ওর বই কেনা শেষ হল আর আমরা রিকশা নিলাম। কাছেই একটা ফুচকার দোকানে বসলাম।

কোন এক অজানা কারনে সেদিন ওকে রাজ্যের লজ্জা পেয়ে বসেছিল।

আর আমি? মন্ত্রমুগ্ধের মত ওকে দেখছিলাম আর ভাবছিলাম – একটা মানুষ এত সুন্দর কিভাবে হয়?

মনে পড়ছিল সেদিন কাজী নজরুল ইসলামের “শিউলি মালা” গল্পের একটা লাইন – “চোখে এক ক্ণা বালি পড়তেই যদি চোখ এতো জ্বালা করে, চোখে যার চোখ পড়ে তার যন্ত্রনা বুঝি অনুভুতির বাইরে।”

আজহারের শিউলিকে দেখে ঠিক এ কথাটা কেন মনে হয়েছিল সেদিন ওর সামনে বসে ফুচকার দোকানে অন্তর থেকেই অনুধাবন করলাম কথাটার অন্তর্নিহিত অর্থ।

দুইটা ঘন্টা বকবক করলাম। সেদিন চেয়েছিলাম সময়টা থেমে যাক।

সময় থামে নি। আমাদের গল্পটাও না।

অনেকটা পথ হেঁটেছি দুজন একসাথে। কখনো এক মুহুর্তের জন্যেও ক্লান্তি আসে নি আমার। আসবেও না আমি জানি।

আজ অনেকটা দিন পেরিয়ে এসে আজ আমরা পেয়েছি একজন অন্যজনকে। পেয়েছি কোন সমাজের নিয়মকানুন মেনে না। এক স্বপ্নের দুনিয়াতে আমাদের বাস এখন। দূরে থাকি ওর থেকে আমি। সমাজ কিছু প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে দিয়েছে আমাদের জন্য। তাই দূরে থাকি।

কিন্তু ভালোবাসি পাগলের মত। এটা তিক্ত এক সত্য আমাদের গল্পের।

একটা অপেক্ষা। অপেক্ষা সেদিনের যেদিন আমরা হয়তো কাছে আসব একজন অন্যজনের। নাহলে এভাবেই থাকব। থেকে যাব হয়তো।

এটাই আমাদের গল্প।

~ আমার ডায়েরীর পাতা থেকে

Gest for my love

O’ my Goddess,
in your hair-
cryptocrystalline blackishness
pierce deeply the sunshine,
when sway –
light withers
and night invades the day.
On your lips –
twilight deepens to scarlet
like vermilion-
forming in crimson red,
crowns softly your twinkling smile,
when your celestial beauty
lilt an ethereal whisper –
sighs only I hear.
And those eyes –
penetrate my being with such affection,
inebriate gasp in my breath –
your love,
your touch,
your gentle confluence.

KaziMustakim_All Rights Reserved © 2017

In silence 

In silence I have listened to the music of crickets,
stars whispering from behind the tiptoeing curtains
of clouds, the silver lining moon beams were more
familiar to me than human faces I am surrounded by –
and my heart beats with the pulse of mother nature.
Beneath the swarming of stars at night I have learned
how beautiful the solitude of a man can be and I have
known – the language of the universe in loneliness –
in my solitary confinement…

KaziMustakim_All Rights Reserved © 2016

একটা দিনের মৃত্যু আর সত্যের প্রস্থান

একটা দিন অগ্নিস্নানে নিঃশেষ হয়ে মুখ থুবড়ে পরে রাতের কোলে-
আর আমার আত্মার চকচকে ধারগুলো পোড় খাই নিঃশব্দে।
অভিশপ্ত সে রাতগুলোতে আচমকা আমার নিথর পচাগলা দেহটা যেন-
প্রজ্জ্বলিত একটা অগ্নিকুন্ডে পরিণত হয়-
আর মাটির তলে হাজার বছর ধরে চাপা পড়ে থাকা জং ধরা হাড়গুলো-
আর্তনাদ করতে থাকে।
হঠাৎ ভাবলেশহীন ঠান্ডা হাওয়া তার ধারটা পরখ করে আমার শ্বাসপ্রশ্বাসে।
শ্বাসরোধ করা আগ্রাসী থাবা আমার গলা চেপে ধরে যেন।
একটা বার ফিরে গিয়েছিলাম রৌদ্রজ্জ্বল দিনের কাছে,
কিন্তু সেখানেও আমাকে ফিরিয়ে দিয়েছিল-
সারি সারি কাচের ফ্রেমে বাধা মিথ্যার মেনেকিনগুলো,
সেখানে দেখেছি তাদের চোখগুলো সব সুঁই আর সুতার কারুকার্যে মেলে রাখা-
আর প্লাস্টিকের সাদা দাঁতের নকল হাসি।
দেখেছি তাদের ঘুমের মাঝে হাটাচলা
আর-
কথাবার্তা-
আর সত্যের রক্তে রঞ্জিত মাটিতে অঙ্কিত তাদের পদচিহ্ন।

KaziMustakim_All Rights Reserved © 2016

Fragments from lone hours

And I close the door of my darkened chamber; I sit-
(midst of my four-walled confinement)
beside fire- heaving a sigh of relief- Numb. Then hours fled-
my inanimate world comes to motion; commence with the recall of-
forgotten past in an undignified manner. Faces arouse in suspicion-
from a curtained bitterness;
and I listen to those unheard voices from many years back,
all those symphonies which counts no one no more.
Slowly and softly my flattered thoughts embark on a saddened ride,
and the stormy wind outside turn into a grieving companion,
rains strengthen its piercing arrows hurting upon the window glass
-in a sinful excitement,
and that is when all the noises turned off- like none of them ever existed,
quicker the foot steps of the last pedestrian dwindle away from nearby road,
leaving a loner behind in solitude.
The enthusiasm in the fiery flames deaden quietly,
and a cold silence wrap me up. I crawl into the bed and no sound I make,
I dare not awaken the ghosts from the dreamless slumber of night.
So I close my eyes-
but I hear again somewhere near a lost wind bewailing.
Somewhere falls a broken branch crying aloud
I become so aware of my frenzied spines- my anesthetized being,
And then I fall into sleep-
Or I compelled to die . . .
Adieu! Cursed shadows- the dwellers within me.

KaziMustakim_All Rights Reserved © 2013

 

The Dam-na-tion

wallpapersdb.org

A memory in a crack disc- a thought so disdain ,
A silent fear trickles down with the dripping sweat –
Sometime a voiceless voice stir vigorously- the nervous system.
The crowd- a turmoil, and those impassive faces, cold disorder,
There’s no sign of regret- or returning from formlessness,
Imperceptible acknowledgement of impenetrable A mystery,
The stillness ran into a riot-a massive destruction- a chaos,
Refusal in tone- rather disclosure of an unknown submissiveness,
Such hatred foiled and crafted beautifully- disgraceful and a disposal,
And heart, becomes a receptacle for deceased feelings-
More oft the sky rains- to pour life into lives, to pacify the disorder,
but every time receded-
Softly, and very slowly in terrible anguish, disconcerted-
A terror- a fire ventured in- diminishing all desires from hearts,
And no souls have left salvaging themSelves from straying-
Dispatched in haste-
tremble when passing through treacherous winter,
Icy touch and then solidity, and then shuddering into pieces –
All efforts in tremor.
And then comes in exquisite manner
Compelled into-

The Dam-na-tion.

KaziMustakim_All Rights Reserved © 2013

Fragmented thoughts from my diary . . .

photocredit:wallpapersdb.org